চট্টগ্রাম   শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১  

শিরোনাম

সাতক্ষীরা পৌর ০৮ নং ওয়ার্ডের প্রায় ১৩ কি. মি. গলি রাস্তার বেহাল দশা  

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি::    |    ০১:১০ পিএম, ২০২১-০৫-২৪

সাতক্ষীরা পৌর ০৮ নং ওয়ার্ডের প্রায় ১৩ কি. মি. গলি রাস্তার বেহাল দশা  

সাতক্ষীরা পৌরসভার প্রাণ ০৮ নং ওয়ার্ড। ওই ওয়ার্ডের মধ্যে প্রায় ১৩ কিলোমিটার গলি রাস্তার ছড়াছড়ি। বিভিন্ন রাস্তার যেমন নাম আছে এইসব গলিরও তেমন নাম আছে। পুরনো গলিগুলির মধ্যে নিউমার্কেট মোড় থেকে বিলপাড় পর্যন্ত লেন অন্যতম। ওই লেনের নাম প্রগতি লেন। অথচ স¦াধীনতার ৫০ বছর পরেও ঐ লেনটি বেহাল অবস্থায় পড়ে রয়েছে। এতে চরম বিপাকে অত্র এলাকায় স্থানীয় বাসন্দাদের পাশাপাশি বসবাসরত জনগণ।
জানা যায়, স্বাধীনতার পূর্বে সাতক্ষীরা পৌরসভায় কম সংখ্যক নাগরিক বসাবাস করলেও স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে ধীরে ধীরে বসবাসকৃত নাগরিকদের সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে থাকে। ওই সময়ে পৌর কর্তৃপক্ষ নাগরিকদের নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করতে পৌরসভাকে ৩ টি ওয়ার্ডে ভাগ করেন। এর পরবর্তীতে তা ০৯ টি ওয়ার্ডে রুপান্তরিত হয়। ওই ওয়ার্ডগুলোর মধ্যে বর্তমানে পৌর ০৮ নং ওয়ার্ড অন্যতম। এই ওয়ার্ডে রয়েছে সরকারি-বেসরকারি প্রায় অর্ধ শতাধিক প্রতিষ্ঠান এবং প্রায় ২ লক্ষ নাগরিকের বসবাস। ঐ নাগরিকদের অধিকাংশই অভিবাসী হলেও অত্র ওয়ার্ডের স্থায়ী নাগরিক প্রায় ১৫ হাজার। ওই নাগরিকদের চলাচলের মূল কেন্দ্র তাদের বাড়ির রাস্তা অর্থাৎ গলি বা লেন। তবে ওই গলি রাস্তাগুলোর মধ্যে হাসান ড্রাইভারের বাড়ি থেকে উদায়ন স্কুলের পিছনের প্রায় ১.৫ কি. মি., কামালনগর নতুন মসজিদ থেকে বিলপাড় পর্যন্ত প্রায় ১ কি. মি., কামালনগর ডিব মসজিদের পার্শ্ব হইতে বাইপাস পর্যন্ত প্রায় ১ কি. মি., নিউ মার্কেট মোড় থেকে বিলপাড় পর্যন্ত প্রায় ৩ কি. মি., মোজাহারের পেট্রোল পাম্প থেকে বিলপাড় পর্যন্ত প্রায় ১ কি. মি, আসমানী শিশু নিকেতন স্কুলের পরের মোড়ের উত্তরের গলির শুরু থেকে হিজড়া পাড়া পর্যন্ত প্রায় ১ কি. মি., হাটের মোড় থেকে স.মিলের ভিতরের রাস্তার জয়েন্ট প্রায় হাফ কি. মি., নবজীবনের পিছনের গলি প্রায় হাফ কি. মি., সুশান্ত ঘোষের বাড়ির পিছন থেকে পালতিপুকুর হয়ে বউবাজার প্রায় ২ কি. মি., ভ্যাট অফিসের মোড় থেকে চিত্রশিল্পী জলিলের বাড়ির মোড় পর্যন্ত প্রায় ১ কি. মি., পাসপোর্ট অফিস মোড় থেকে নাহার মটর পর্যন্ত প্রায় হাফ কি. মি. রাস্তা দীর্ঘদিন বেহাল অবস্থা।
জেলার সচেতন নাগরিকরা জানান, সাতক্ষীরার প্রাণকেন্দ্রে বসবাস করেও প্রায় সকল ধরনের নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত নিউ মার্কেটের পিছন সাইডের বাসীন্দা। এটা অবিশ্বাস্য হলেও এদের এখানে বাড়ী থেকে বের হতে গেলে কিংবা বাহির থেকে ভিতরে ঢুকতে গেলেই শুরু হয় এক অবর্ননীয় যন্ত্রণা। অথচ অত্র এলাকার কাউন্সিলর নিউ মার্কেটের পাশেই তার বাড়ী সে পথ টি চওড়া করার কোন উদ্যোগ নিচ্ছে না বলব না হয়তো পারছে না বা তার সামর্থের বাইরে। অথচ এই পথটি প্রায় ভিতরে ১ থেকে ২ কি. মি. চিকন সরু গলি রাস্তা হিসাবে বয়ে গেছে। না ঢোকে একই সাথে দুটি মটর সাইকেল ক্রস করতে গেলেও ভয় হয় না জানি লেগে গেছে। এরাস্তাটি শুধু মাত্র কয়েক জন প্রভাবশালী ব্যক্তি ও তাদের কয়েকটি পরিবারের জন্য প্রায় কয়েক হাজার মানুষের ভোগান্তির শিকার। স্থানীয় প্রশাসন ও জেলা প্রশাসনের কোন কর্মকর্তা এর ভিতের প্রবেশ করে না বিধায় সাতক্ষীরার প্রাণকেন্দ্রে হলেও এখানকার অবস্থ এরকম। যদি প্রশাসনের কোন উর্ধতন কর্মকর্তা ভিতরে ঢোকার প্রয়োজন হতে তাহলে হয়তো রাস্তাটা অনেক আগেই পূর্ণতা পেত। বিষয়টিতে স্থানীয় কাউন্সিলর ও মেয়র যদি একটু আন্তরিক হন তাহলে এ সমস্যা থেকে উতরানো সম্ভব। এবং নিউ মার্কেটের পিছন সাইডটি হবে অনেকটা পরিচ্ছন্ন এলাকা। সচেতন অনেকে মনে করেন তাদের এই রাস্তাটি কখনও আর আলোর মুখ দেখবে না কারন সেখানে বহুতল বিশিষ্ট বাড়ী নির্মান করা হয়েছে। স্থানীয় প্রশাসন একরনেই রাস্তাটির দিকে খেয়াল করবে না। মূলত যে সমস্ত বহুতল ভবন নির্মাণ হয়েছে সেগুলো অনেকটাই পৌর বিধি অনুযায়ী ও বিল্ডিং কোড না মেনেই। পৌর নিয়ম নীতির কোন বালাই এখানে নাই। পৌর প্রশাসন হয়তো এ কারনে এখানে রাস্তাঘাট, গভীর ও বড় ড্রেন নির্মান হবে না। একটু বৃষ্টি হলেই রাস্তার উপরে পানি জমে যায়। এখানকার বাসীন্দাদের বাড়ীতে ফেরতে লেজ গোবরের মতন অবস্থা। অথচ পৌর মেয়র, কাউন্সিলর বৃন্দের বাড়ীতে ঢুকতে এরকম কোন পরিস্থিতির স্বীকার হতে হয় কিনা আমার জানা নাই।
এ ব্যাপারে জানার জন্য সাতক্ষীরা পৌরসভার মেয়র তাজকিন আহমেদ চিশতীকে একাধিকবার ফোন করলেও তিনি ফোনটি রিসিভ করেননি।    
বিষয়টি সম্পর্কে ০৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সির শফিকুল ইসলাম (বাবু) এর কাছে সেলফোনে জানতে চাইলে তিনি জানান, আপনি আগামী কাল অফিসে আসেন। সামনে বসে এ বিষয়ে কথা বলবো।
এ সম্পর্কে সাতক্ষীরা জেলা নাগরিক কমিটির আহবায়ক মো. আনিসুর রহিম জানান, ফায়ার সার্ভিস বা এ্যাম্বুলেন্স যেতে পারবে না এমন কোনো জায়গায় পৌর কর্তৃপক্ষ বিল্ডি করার অনুমতি না দিলে অত্র এলাকার সকল নাগরিক মিলে রাস্তার জন্য জায়গা ছাড়বে
নতুবা তারা একটি বিকল্প পদ্ধতি নিজেরাই বের করবে।    
গলি বা লেনের বেহাল দশা প্রসঙ্গে নিরাপদ সড়ক সাতক্ষীরার সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু কালাম জানান, নিরাপদ সড়কে চলাচল কারা জনগণের অধিকার। এ কারণে সড়ক নিরাপদ রাখা সরকারের দায়িত্ব। অথচ সাতক্ষীরা পৌরসভার বেশকিছু এলাকা ঘুরলে এ  রকম চিত্র অহরহ চোখে পড়ে। এখন প্রশ্ন একটাই, কবে শেষ হবে গলি বা লেনের এই বেহাল দশা, কবে শেষ হবে ভোগান্তি, কবে ফিরে আসবে আমাদের স্বস্তি?
নাগরিক সুবিধা বঞ্চিত নিউ মার্কেট এলাকার এক বাসিন্দা মাছুম গাজী জানান, আমারা এলাকার বাসীন্দা হিসাবে বলতে পারি আমরা নাগরিক সুবিধা হিসাবে পৌরসভার কাছে যে উন্নয়নের চিত্র পাই না কেন সবই আমাদের জন্য হিতে বিপরীত। এ পর্যন্ত অনেক কাউন্সিলর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী এসে ভোট প্রার্থনা করলেও কারও কাছ থেকে এরকম কোন আশ্বাস পাওয়া যায় নাই যে, আমি নির্বাচিত হলে অত্র পথটি চওড়া বিশেষ করে ফায়ার সার্ভিস এবং এম্বুলেন্স যাতে ঢুকতে পারে। যদি কখনও কোন রকম আগুন বা অন্য কোন দুর্ঘটনা ঘটে তবে সে ক্ষেত্রে অত্র এলাকার বাসীন্দাদের বাঁচার আর কোন রাস্তা থাকবে না বলে মনে করি। এই একবিংশ শতাব্দীতে দাড়িয়ে অত্র এলাকার বাসীন্দাদের চাওয়াটা কি খুব বেশী? বিশেষ করে রাস্তাটি চওড়া করা। তাই যদি হয় তাহলে পৌর মেয়র, মেয়র প্রার্থী, কাউন্সিলর, কাউন্সিলর প্রার্থী, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যানদ্বয় অত্র এলাকায় ভোটের জন্য কেন যায়? বুঝেছি তারা তো গদিতে যাওয়ার জন্য ভোট প্রার্থনা (চাইতে যায়)। পৌর বিধিতে কি কোন নিয়ম আছে যে, বিল এলাকায় কোন রাস্তাঘাট হবে না, বা হইলেও রাস্তাঘাট করা যাবে না বা পৌর সভার ভিতরে কেউ কখনও রাস্তাঘাটের দাবী নিয়ে পৌরসভায় আসবেন না। যদি তা অফিসিয়াল ডকুমেন্টে থেকে থাকে তাহলে উক্ত এলাকায় রাস্তাঘাট চওড়া করার দাবীটা অবান্তর। কিছু প্রভাবাশালী ব্যক্তিদের কারনে প্রায় হাজার খানেক মানুষেরা নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। আমাদের জন্ম, বেড়েওঠা, এই শহরে অথচ কিছু ব্যক্তি দ্বয়ের কারনে আমরা পিছিয়ে আছি। নাগরিক অধিকার উন্নয়ন সমন্বয় কমিটি, সাতক্ষীরা উন্নয়ন সংগ্রাম কমিটি, নাগরিক আন্দোলন মঞ্চ, সাতক্ষীরা জেলা নাগরিক কমিটি, বেতনা উন্নয়ন কমিটি, পানি কমিটি, যমুনা বাচাঁও কমিটি সবার কাছে আমাদের স্বগর্বে মাথা উচু করে বেচে থাকার আকুতি জানাচ্ছি। আমরা ও আমাদের সন্তানেরা যাতে নাগরিক সুবিধা পাইতে পারে সি বিষয়ে সকলের কাছে উদাত্ত অনুরোধ।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি জানান, রাতের আধারে আমাদের যদি বিদ্যুতের তার ছিড়ে যায় সেখানে বিদ্যুত বিভাগের লোকজন বলে ভাই ওর ভিতরে এই মই (বাঁশই) নিয়ে ডুকবো কি করে টাকা আপানাকে হয়তো একটু বেশি দিতে হবে আমরা ঠিক এরমই প্রতিটি পদে পদে বিড়ম্বনা শিকার হই। তা পৌরকর্তৃপক্ষ, প্রশাসন জানলেও কোন উদ্যোগ তারা নেয়নি তাই আমাদের এখানে বসবাস / বেঁেচ থাকা এক বিষাদময় জীবন। জেলা প্রশাসক, পৌরসভার মেয়র, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার সবার কাছে আমাদের আবেদন উক্ত রাস্তাটি যদি জনসাধারনের দিক বিবেচনা করে রাস্তাটি চওড়া করা হয় অত্র এলাকার এলাকাবাসী হয়ে আমরা কৃতজ্ঞ থাকব।

রিটেলেড নিউজ

সিরাজগঞ্জে স্বামীর ছুরিকাঘাতে স্ত্রীর মৃত্যু

সিরাজগঞ্জে স্বামীর ছুরিকাঘাতে স্ত্রীর মৃত্যু

সংকাদদাতা, সিরাজগঞ্জ: : সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকার চর মালশাপাড়া মহল্লায় স্বামীর ছুরিকাঘাতে রিমা খাতুন (২০) নামে এক গৃহবধুর মৃ...বিস্তারিত


চৌহালীতে এখনো দূর্ভোগ কমেনি

চৌহালীতে এখনো দূর্ভোগ কমেনি

চৌহালী (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি: : বন্যার পানি কমতে শুরু করলেও যমুনা নদী ভাঙ্গনে এবং ঘরবাড়ি, ভিটে-মাটি, জমি-জমা ভেঙ্গে যাওয়া পরিবার গু...বিস্তারিত


কিশোরগেঞ্জ সড়ক দুর্ঘটনায় স্কুল শিক্ষক নিহত

কিশোরগেঞ্জ সড়ক দুর্ঘটনায় স্কুল শিক্ষক নিহত

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি : : কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে মর্মান্তিক এক সড়ক দুর্ঘটনায় মো. ফজলুর রহমান ওরফে বাচ্চু মিয়া (৪৫) নামে সরকার...বিস্তারিত


গোবিন্দগঞ্জে মাদকসহ যুবক আটক

গোবিন্দগঞ্জে মাদকসহ যুবক আটক

গোবিন্দগঞ্জ(গাইবান্ধা)প্রতিনিধি : : গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে নেশার ট্যাবলেট ট্যাপেন্টাসহ এক যুবককে আটক করেছে র‌্যাব। সোমবার দুপুরে...বিস্তারিত


সিরাজগঞ্জে আরাফাত রহমান কোকো স্মৃতি সংসদের আত্মপ্রকাশ

সিরাজগঞ্জে আরাফাত রহমান কোকো স্মৃতি সংসদের আত্মপ্রকাশ

সংকাদদাতা, সিরাজগঞ্জ: : আরাফাত রহমান কোকো স্মৃতি সংসদ সিরাজগঞ্জ জেলা শাখার আত্মপ্রকাশ ঘটেছে।  কেন্দ্রীয় সংসদ কর্তৃক ১৫...বিস্তারিত


জবি’তে ১৪৮ কোটি ৮৭ লাখ টাকার বাজেট পাশ 

জবি’তে ১৪৮ কোটি ৮৭ লাখ টাকার বাজেট পাশ 

জবি প্রতিনিধি : জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবির) ২০২০-২১ অর্থ বছরের সংশোধিত বাজেট এবং ২০২১-২২ অর্থ বছরের মূল রাজস্ব (অন...বিস্তারিত



সর্বপঠিত খবর

পার্বত্য ভিক্ষসংঘু ও পার্বত্য ত্রাণ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বই বিতরণ 

পার্বত্য ভিক্ষসংঘু ও পার্বত্য ত্রাণ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বই বিতরণ 

বিহারী চাকমা, রাঙামাটি : :   রাঙ্গামাটির লংগদু কলেজে পার্বত্য ভিক্ষুসংঘ ও পার্বত্য ত্রাণ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দরিদ্র ও ম...বিস্তারিত


“ হিন্দুরা বাংলার দেশপ্রেমি নবাব সিরাজউদ্দৌলাকে আখ্যায়িত করে অশুর আর বাংলার দুশমন ক্লাইভকে আখ্যায়িত করে মা দূর্গা! ”

“ হিন্দুরা বাংলার দেশপ্রেমি নবাব সিরাজউদ্দৌলাকে আখ্যায়িত করে অশুর আর বাংলার দুশমন ক্লাইভকে আখ্যায়িত করে মা দূর্গা! ”

নবাবজাদা আলি আব্বাসউদ্দৌলা :- :   নবাবজাদা আলি আব্বাসউদ্দৌলা :- পলাশী একটি বিশ্বাসঘাতকতার ইতিহাস। এই ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছিল...বিস্তারিত



সর্বশেষ খবর